তারিখ : ১৯ নভেম্বর ২০১৯, মঙ্গলবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

নান্দাইলে পোকা দমনে পার্চিং পদ্ধতিতে কৃষকের আগ্রহ বাড়ছে

নান্দাইলে পোকা দমনে পার্চিং পদ্ধতিতে কৃষকের আগ্রহ বাড়ছে
[ভালুকা ডট কম : ১৪ অক্টোবর]
ময়মনসিংহে পোকামাকড়ের সন্ধানে ধানের জমিতে পুর্তে রাখা গাছের ডাল অথবা বাঁশের কঞ্চিতে এসে বসছে পাখি। যখনই চোখে পড়ছে পোকামাকড় তখনই ধরে খাচ্ছে পাখিরা। এমন দৃষ্য এখন উপজেলার বিভিন্ন আমন ধানক্ষেতে। ধানক্ষেতে লম্বা গাছের ডাল বা বাশেঁর কঞ্চি দিয়ে পোকামাকড় দমনের নাম পার্চিং পদ্ধতি। নান্দাইল উপজেলায় এখন সর্বত্র ধানক্ষেতে পার্চিং পদ্ধতিতে পোকা দমন পদ্ধতি বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠছে।

নান্দাইল উপজেলায় ১৩টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌর সভায় এবার ২২হাজার হেক্টর জমিতে আমন আবাদ করা হয়েছে। এর মধ্যে প্রায় ১৫হাজার হেক্টর আমন ক্ষেতে পার্চিং পদ্ধতি ব্যবহৃত হচ্ছে। প্রতিটি ধানক্ষেতে ১৫থেকে ১৮হাত দূরে দূরে লম্বা গাছের কিংবা বাশেঁর কঞ্চি পুতে রাখে। এতে পাখি বসে ক্ষেতের পোকামাকড় খাচ্ছে। এদিকে আমন ধানক্ষেতে গাছের ডাল ও বাশেঁর কঞ্চি স্থাপন করায় একদিকে যেমন বিভিন্ন পাখির সমাগম ঘটছে তেমনি এই পদ্ধতি ব্যবহারে কীটনাশক ব্যবহার ছাড়াই পোকা দমন ও পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষা হচ্ছে। উপজেলার প্রায় ১৫হাজার হেক্টর জমিতে পরিবেশবান্ধব এই পার্চিং পদ্ধতি চালু করা হলেও ইতোমধ্যেই কৃষকদের মাঝে পদ্ধতিটি বেশ জনপ্রিয়।

পার্চিং পদ্ধতি ব্যবহারকারী কৃষক শহিদ হোসেন জানান, এই পদ্ধতি ব্যবহার করে ধানের জমিতে কীটনাশকের তেমন প্রয়োজন হয় না। আবাদে খরচও কমে। উপজেলার কৃষি অফিসার মো. নাসির উদ্দিন জানান, কীটনাশক ছাড়াই পাখি দিয়ে ধানক্ষেতের পোকামাকড় দমনে পার্চিং পদ্ধতি ব্যবহার করলে এলাকার পরিবেশ, জীববৈচিত্র্য রক্ষাসহ কৃষকরা সাশ্রয়ে আবাদ করতে পারবে। এছাড়া জমিতে বসা পাখির বিষ্ঠা ত্যাগের কারণে ইউরিয়া সার কম প্রয়োজন পড়ে।#





সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

কৃষি/শিল্প বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ১২২২ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই