তারিখ : ১৮ জুলাই ২০১৯, বৃহস্পতিবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

সখীপুরে পাঁচ বছর পর পুলিশ দিয়ে ধরে এনে বিয়ের কাবিন

সখীপুরে পাঁচ বছর পর পুলিশ দিয়ে ধরে এনে বিয়ের কাবিন
[ভালুকা ডট কম : ১৭ জুন]
টাঙ্গাইলের সখীপুরে বিয়ের পাঁচ বছর পর পুলিশ দিয়ে ধরে এনে বিয়ের নিবন্ধন (কাবিন বা নিকাহ রেজিস্ট্রি) করার ঘটনা ঘটেছে। রোববার সখীপুর পৌরসভার নিকাহ রেজিস্ট্রার (কাজি অফিস) কার্যালয়ে এ কাবিন করা হয়। রেজিস্ট্রি করা ওই বর আরিফুল ইসলাম (৩০) সখীপুর পৌরসভার ৩ নম্বর ওয়ার্ডের শিকদার রোড এলাকার খোরশেদ আলমের ছেলে এবং রুবি একই ওয়ার্ডের রেজিস্ট্রি পাড়ার মৃত হাছেন আলীর মেয়ে।

রুবি জানান, আনুমানিক পাঁচ বছর আগে প্রেম করে তাঁদের বিয়ে হয়। ওই সময় একজন মৌলভি ধর্মীয়ভাবে তাঁদের বিয়ে পড়ালেও রাষ্ট্রীয় নীতিতে কাবিন (রেজিস্ট্রি) হয়নি। এভাবেই তাঁদের সংসার চলতে থাকে। সংসারে দুই বছরের একটি মেয়েও আছে। মাঝে মধ্যেই তাঁর স্বামী তাঁকে নানাভাবে মানসিক নির্যাতন ও মারধর করেন। ঝগড়া বাঁধলেই স্বামী  হুমকি দেন বিয়ের কাবিন নেই। তাই তালাক দিলেও কোনো মামলা হবে না। কারণ মামলা করলে কাবিন লাগবে। পরে রুবি  স্বজনদের মতামত নিয়ে বিষয়টি ওসিকে জানালে সখীপুর থানার ওসি মো. আমির হোসেন রুবি  স্বামী আরিফুল ইসলামকে থানায় ডেকে এনে কাজির সঙ্গে কথা বলে কাবিনের ব্যবস্থা করেন।

এ বিষয়ে সখীপুর থানার ওসি মো. আমির হোসেন বলেন, রুবির মৌখিক অভিযোগ পেয়ে আরিফুলকে থানায় ডেকে এনে কাজির সঙ্গে কথা বলে কাবিন করার ব্যবস্থা করা হয়েছে।সখীপুর পৌরসভার কাজি (নিকাহ রেজিস্ট্রার) ও উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মো. শফিউল ইসলাম কাজী বাদল ওই দম্পত্তির পাঁচ লাখ টাকার কাবিন করার বিষয়টি নিশ্চিত করে করেন।#





সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

জীবন যাত্রা বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ৫৮৩ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই